‘আগুন নিয়ে খেলা’র রাজনীতি বন্ধ করতে হবে: আ স ম রব

জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জেএসডি’র স্থায়ী কমিটির সদস্য ও কেন্দ্রীয় কার্যকরী কমিটির সহ-সভাপতি আব্দুল হাই এর স্মরণে ভার্চুয়াল শোকসভায় সভাপতির ভাষণে দলীয় সভাপতি আ স ম আবদুর রব বলেন, পরিবহনে আগুন বা পেট্রোল বোমা নিক্ষেপ বা প্রাণহানির মত ঘটনায় ‘প্রকৃত সত্যকে উদঘাটন’ না করে সরকার রাজনৈতিক প্রতিপক্ষকে দমন করার অপকৌশল গ্রহণ করে কপটতার আশ্রয় নিয়েছে। ঘটনার অব্যবহিত পরেই বিরোধী দলকে অভিযুক্ত করে অসংখ্য মানুষের নামে সরকার মামলা দায়ের করে, যা একেবারেই গ্রহনযোগ্য নয়। অন্যদিকে সরকারি দল কোনরকম প্রমাণ ব্যতিরেকে বিরোধী দলকে ঘায়েল করার অপকৌশলে লিপ্ত থেকে রাজনৈতিক পরিস্থিতিকে ভিন্ন খাতে নেবার অপচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

তিনি বলেন রাজনৈতিক শূন্যতা আর গণতান্ত্রিক সংস্কৃতির অনুপস্থিতিতে জন্ম নেয় আশঙ্কা ও অনিশ্চয়তা। এই অনিশ্চয়তার কারণে ক্ষমতাসীন গোষ্ঠী আত্মবিশ্বাসের অভাবে যে কোন ঘটনা বা পরিস্থিতিকে পুঁজি করে নিজেদের অবস্থান সংহত করতে চায়। তাই অনুরূপ পরিস্থিতির সৃষ্টি হলেই প্রকৃত ঘটনাকে আড়াল করে তারা সদর্পে আস্ফালনে নেমে পড়ে বিরোধী দল দমনে।

অতীতের মত আগুন নিয়ে সা¤প্রতিক রাজনৈতিক খেলা তার জ্বলন্ত প্রমান। আগুন নিয়ে খেলার রাজনীতি একদিকে যেমন মূল্যবান জীবন ও সম্পদের ক্ষতিসাধন করছে অন্যদিকে গণতান্ত্রিক রাজনৈতিক সংস্কৃতি ধ্বংস করছে। এটা কোন ক্রমেই মেনে নেয়া যায় না।

দেশের বৃহত্তর গণতান্ত্রিক স্বার্থে ‘আগুন নিয়ে খেলা’র রাজনীতি সরকারকে অবশ্যই বন্ধ করতে হবে। ‘নিয়ন্ত্রিত’ ও ‘সংকুচিত’ রাজনীতি এবং জনগণের সম্মতি বিহীন রাষ্ট্র পরিচালনার পরিবর্তে সকল মত পথের গণতান্ত্রিক অধিকার নিশ্চিত করতে হবে। এর মাধ্যমেই যে কোন ধরনের অপরাজনীতি ঐক্যবদ্ধ ভাবে মোকাবেলা করে গতিশীল রাজনীতির বিকাশ ঘটানো সম্ভব হবে।
শোক সভায় প্রয়াত নেতা এডভোকেট আব্দুল হাই’র স্মৃতিচারণ করে আ স ম রব বলেন একটি গণমুখী রাষ্ট্রের স্বপ্ন দেখেছিলেন আমাদের প্রিয় সাথী আবদুল হাই। সে স্বপ্ন পূরণে আমাদেরকে নিরলস সংগ্রাম চালিয়ে যেতে হবে।

জনাব শহীদ উদ্দিন মাহমুদ স্বপন এর পরিচালনায় উক্ত শোক সভায় বক্তব্য রাখেন দলের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট ছানোয়ার হোসেন তালুকদার, সাবেক দায়রা জজ ও সুপ্রীম কোর্টের আইনজীবি সা কা ম আনিসুর রহমান খান, মিসেস তানিয়া রব, মোঃ সিরাজ মিয়া, ডাঃ জবিউল হোসেন, আমিন উদ্দিন বিএসসি, ড. শাহানাজ জাহান লিনা, এ্যাড. সৈয়দা ফাতেমা হেনা, আহসান উদ্দিন চৌধুরী সুইট, মোশাররফ হোসেন মন্টু, ব্যারিষ্টার ফারাহ খান প্রমুখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *